বাংলাদেশ , শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

সরকার থেকে সময় হলে মাশুল আদায় করবে জনগন, ফখরুল।

লেখক : সম্পাদক | প্রকাশ: ২০১৯-১১-২১ ১৭:২৪:৪৮

মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় উচ্চ আদালত কর্তৃক বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন এবং তার ছেলে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিনের সাজা বহাল রাখায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান সরকার বিএনপিসহ বিরোধী দলের সিনিয়র নেতাসহ সব পর্যায়ের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা মামলা দিয়ে বিরতিহীনভাবে হয়রারি করে চলছে। বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় কারাবন্দি করে, বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে নানাভাবে নির্যাতন-নিপীড়ন করে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা করছে।

বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) দলটির সহ-দফতর সম্পাদক বেলাল আহমেদের পাঠানো এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, তারই ধারাবাহিকতায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন এবং তার পুত্র ও বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে নিম্ন আদালতের সাজা উচ্চ আদালতে বহাল রাখা হলো। সরকারের চক্রান্তেই সাজানো মামলায় এ সাজা দেয়া হয়েছে। যদিও ২০১০ সালে হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ দু’জনকে খালাস দেয়।

ফখরুল বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার দেশের বিরোধী শক্তিকে ধ্বংস করে একদলীয় মনোপলি শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে নিজেদের একচ্ছত্র ক্ষমতা দীর্ঘ মেয়াদে ভোগ করতে চায়। এ কারণেই বিরোধীদলের ওপর দমন-নিপীড়ন, হামলা মামলার পথ অনুসরণ করতে সরকার দ্বিধাহীন ও বেপরোয়া। দেশের মানুষকে, গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করে দেশকে এক ভয়াবহ নৈরাজ্যকর অমানিশার মধ্যে নিপতিত করেছে এ সরকার।

তিনি আরও বলেন, সারাদেশে প্রতিদিন যেভাবে বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে হীন রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থের মামলা দায়ের করে গণগ্রেফতার চালানো হচ্ছে এবং সাজানো মামলায় কারাদণ্ড দেয়া হচ্ছে- তা অবিলম্বে বন্ধ করা না হলে সরকারের প্রতি ক্ষুদ্ধ জনগণ চড়া মাশুল আদায় করে নেবে।

Print Friendly, PDF & Email